আজ | মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০
Search

ফ্রেঞ্চ ওপেন জিতলেন নাদাল

চাহিদা নিউজ ডেস্ক | ৯:২৭ অপরাহ্ন, ১২ অক্টোবর, ২০২০

chahida-news-1602516444.jpg

ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালে রাফায়েল নাদালের সামনে দাঁড়াতেই পারলেন না নোভাক জোকোভিচ। লড়াইটা ছিল ২ ঘণ্টা ৪৩ মিনিটের। এই লড়াইয়ে নাদালের কাছে হার মানলেন বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকা জোকোভিচ। ১৩তম বারের মতো ক্লে কোর্টের শিরোপা জিতে রজার ফেদেরারের ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের রেকর্ডে ভাগ বসালেন স্প্যানিশ তারকা নাদাল।

রোববার প্যারিসের রোলাঁ গারোঁয় নম্বর ওয়ান তারকা জোকোভিচকে ৬-০, ৬-২, ৭-৫ গেমে হারান ৩৪ বছর বয়সী নাদাল। যিনি র‌্যাঙ্কিংয়ে বর্তমানে দুই নম্বর। স্প্যানিশ তারকার এটি ফরাসি ওপেনে টানা চতুর্থ শিরোপা। অপরদিকে জোকোভিচের সুযোগ ছিল ফ্রেঞ্চ ওপেন জিতে এই তালিকায় ফেদেরার ও নাদালের সঙ্গে ব্যবধান কমানোর। ১৭টি গ্র্যান্ড স্লাম জিতে এই দুজনের পরেই অবস্থান তার।

এই ম্যাচ জিতে আরেকটি কীর্তি গড়েছেন নাদাল, ক্লে কোর্টে ১০০তম ম্যাচ জয়ের রেকর্ড নিজের ঝুলিতে পুরেছেন তিনি। আর এই ম্যাচ জিতে নাদাল বুঝিয়ে দিলেন তাঁকে কেন এই কোর্টের রাজা বলা হয়।

মাত্র ৪৫ মিনিটে প্রথম সেট জিতে নেন তিনি। সবাইকে অবাক করে নাদাল সেই সেটে ১০টি উইনার মারেন। দ্বিতীয় সেটেও নাদালের আধিপত্য ছিল। তৃতীয় সেটে কিছুটা লড়াই করেন সার্বিয়ান তারকা জোকোভিচ। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি, এরই মধ্যে ম্যাচটা নিজের করে নেন নাদাল।

৩৩ বছর বয়সী জোকোভিচ এ বছর এই প্রথম কোনো ম্যাচ হারলেন। ম্যাচ শেষে যিনি মেনে নিলেন ক্লে কোর্টে নাদালের রাজত্বকে। জোকোভিচ বললেন, ‘কিং অফ ক্লে’, আজ তুমি দেখালে, কেন তুমি ক্লে কোর্টের রাজা।

১৩তম ফ্রেঞ্চ ওপেন জয়ের পর নাদাল বলেন, ‘এখানে জয়ই আমার কাছে সবকিছু। সত্যি বলতে, ২০তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয় ও রজারের রেকর্ড ছোঁয়া নিয়ে ভাবছি না। আমার কাছে এটা শুধুই আরেকবার রোলাঁ গারোঁ জয়।’

রাজত্ব ধরে রাখা নিয়ে স্প্যানিশ তারকা বলেন, ‘ক্যারিয়ারে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তগুলোর বেশির ভাগ এখানে কাটিয়েছি আমি। এখানে খেলতে পারাটাই আমার জন্য অনুপ্রেরণার। এই শহর ও এই কোর্টের সঙ্গে আমার যে ভালোবাসার গল্প, তা কখনো ভুলে যাওয়ার নয়।’

উল্লেখ্য, ঠিক ১২ বছর আগে ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালে সরাসরি সেটে ফেদেরারকে হারিয়েছিলেন নাদাল। আজ আবার জোকোভিচের বিপক্ষে সরাসরি সেটে জিতলেন তিনি।

  

আপনার মন্তব্য লিখুন