আজ | শনিবার, ১১ এপ্রিল ২০২০
Search

ব্যবসা স্থানান্তর না করতে চীনা দূতের আহ্বান

চাহিদা নিউজ ডেস্ক | ৯:৫৩ অপরাহ্ন, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

chahida-news-1581954820.jpg

করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের প্রেক্ষাপটে চীনের বিকল্প হিসেবে অন্য দেশে ব্যবসা স্থানান্তর না করতে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। সোমবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে কূটনৈতিক প্রতিবেদকদের সংগঠন ডিকাব আয়োজিত ‘ডিকাব টকে’ তিনি এ পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি বিবেচনা করে অন্য দেশে ব্যবসা স্থানান্তর হবে ব্যয়বহুল, অসম্ভব এবং অপ্রয়োজনীয়।’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘বাংলাদেশ ও মিয়ানমারই এখানে মূল ভূমিকা পালনকারী, চীন নয়। তবে এই সমস্যার সমাধানে চীন দুই দেশকেই সহায়তা করছে।’

এসময় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে ত্রিপক্ষীয় পদ্ধতির কথা উল্লেখ করে এ বিষয়ে দ্রুত অগ্রগতির আশাবাদ ব্যক্ত করেন চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং।

রাষ্ট্রদূত লি জিমিং জানান, বাংলাদেশে এই মুহূর্তে মোট ১০ হাজারের মতো চীনা নাগরিক আছেন। এর মধ্যে প্রায় আট হাজারের মতো বিভিন্ন প্রকল্পে জড়িত।

রাষ্ট্রদূত লি জিমিং জানান,বাংলাদেশে এই মুহূর্তে মোট ১০ হাজারের মতো চীনা নাগরিক আছেন। এর মধ্যে প্রায় আট হাজারের মতো বিভিন্ন প্রকল্পে জড়িত।

এই আট হাজার চীনা নাগরিকের মধ্যে এক হাজার চীনে ফেরত গেছেন। তাদেরকে বাংলাদেশে আসতে নিষেধ করা হয়েছে। তবে এই এক হাজার লোক বাংলাদেশে বিভিন্ন প্রকল্পের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে নিয়োজিত। তাদের ফেরত না আসার কারণে কয়েকটি প্রকল্পের কাজ ব্যাহত হতে পারে বলে জানান রাষ্ট্রদূত।

উহানে অবস্থান করা ১৭১ জন বাংলাদেশির বিষয়ে রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেন, ‘এদের ফিরে আসার বিষয়ে চীনের অনুমোদন তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয়, কিন্তু কয়েকটি টেকনিক্যাল কারণে তাদের দেশে আসা পিছিয়ে যাচ্ছে। এর আগে ৩১২ জনকে বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইটে করে দেশে আনা হয়েছে। এখন বাংলাদেশ বিমান তাদের ফ্লাইট আর চীনে পাঠাতে চাচ্ছে না। আমরা এখন বাণিজ্যিক ফ্লাইটের মাধ্যমে তাদেরকে ঢাকায় আনার চেষ্টা করছি।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ডিক্যাব সভাপতি আঙ্গুর রাহার মন্টি এবং সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুর রহমান।

  

আপনার মন্তব্য লিখুন