ভিপি প্রার্থী লিটন নন্দীর ওপর হামলা
আজ | রবিবার, ২৬ মে ২০১৯
Search

ভিপি প্রার্থী লিটন নন্দীর ওপর হামলা

১২:৪০ অপরাহ্ন, ১১ মার্চ, ২০১৯

chahida-news-1552286410.jpg
ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে ভোটগ্রহণের দিনে হামলার শিকার হযেছেন বাম জোটের ভিপি প্রার্থী লিটন নন্দী। ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা তার ওপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ করা হয়েছে জোটের পক্ষ থেকে।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে ঢাবির মুহসীন হল ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনে গেলে মারধরের শিকার হন লিটন নন্দী।

বাম জোটের এ প্রার্থী অভিযোগ করে বলেন, ছাত্রলীগ নেতারা হলের মূল ফটকে নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আছে সকাল থেকেই। ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করতে গেলে ছাত্রলীগ হামলা চালায়।এ সময় আমার সঙ্গে থাকা অন্য প্রার্থীদেরও লাঞ্চিত করে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা।

লিটন নন্দীকে মারধরের ঘটনায় ছাত্রলীগ ও বাম জোটের নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় ওই এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।পরে প্রক্টরিয়াল বডি গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

এ বিষয়ে মুহসীন হলের প্রভোস্ট নিজামুল হক ভুইয়া বলেন, ‘ভুল বোঝাবুঝি থেকে এমন হয়েছে। এখন পরিবেশ শান্ত।’

প্রসঙ্গত ২৮ বছর পর অনুষ্ঠেয় ডাকসু নির্বাচন শুরু হয়েছে সকাল ৮টায়। বেলা ২টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ। এতে ৪৩ হাজার ২৫৬ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন। মোট ভোটারের মধ্যে ছাত্র ২৬ হাজার ৯৪৪ এবং ছাত্রী ১৬ হাজার ৩১২ জন।

ডাকসুতে ২৫ পদে নির্বাচন হচ্ছে। বিভিন্ন পদের মধ্যে আছে ভিপি, জিএস, এজিএস একটি করে ৩টি। আরও আছে- সম্পাদকীয় ৯টি এবং ১৩টি সদস্যপদ। এসব পদের জন্য বিভিন্ন প্যানেল ও স্বতন্ত্রসহ প্রার্থী ২২৯ জন। তাদের মধ্যে স্বতন্ত্রসহ ভিপি ২১, জিএস ১৪ জন।

ডাকসু নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে ১৩টি প্যানেল। অন্যদিকে প্রত্যেক হল সংসদে ১৩টি পদে নির্বাচন হচ্ছে। এর মধ্যে ভিপি, জিএস, এজিএস একটি করে তিনটি। আরও আছে সম্পাদকীয় ৬, সদস্য ৪টি। হল সংসদ (১৮টি হল, ২৩৪ পদে) প্রার্থী ৫০৯ জন। হল সংসদ ও ডাকসু মিলিয়ে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে গড়ে ৩৮টি করে ভোট দিতে হবে। সুষ্ঠুভাবে ভোটের কাজ শেষ করতে রিটার্নিং অফিসারসহ (আরও) ৪২ জন কাজ করছেন।

  

আপনার মন্তব্য লিখুন