আজ বৃহঃস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ |
Search

প্রচ্ছদ খেলা চূড়ান্ত লক্ষ্য ট্রফি : সাকিব

৩৮  বার পড়া হয়েছে

চূড়ান্ত লক্ষ্য ট্রফি : সাকিব

চাহিদা নিউজ ডেস্ক | ১২:৩৭ অপরাহ্ন, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

  

chahida-news-1536734265.jpg

এশিয়া কাপ খেলতেই আঙ্গুলের অস্ত্রোপচার পিছিয়ে দিয়েছেন। হজ পালন শেষে যুক্তরাষ্ট্র চলে যাওয়ায় টুর্নামেন্টের প্রস্তুতির ক্যাম্পে ছিলেন না। কয়েকদিন আগে নিজের ফিটনেস বিষয়ে গণমাধ্যমে বক্তব্য দিয়ে বিতর্কে পড়েছিলেন। যদিও যুক্তরাষ্ট্র থেকে দলের আগেই দুবাই পৌঁছে গিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান।

দুবাই পৌঁছে সতীর্থদের মতো বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারও বলেছেন, এশিয়া কাপ জেতাই বাংলাদেশের চূড়ান্ত লক্ষ্য। গত রবিবার প্রথম দিনের অনুশীলনে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) ওয়েবসাইটকে সাকিব বলেছেন, একটা একটা ম্যাচ ধরে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ। গ্রুপ পর্বে শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তানকে হারাতে সেরা ক্রিকেটই খেলতে হবে টাইগারদের।

গত দুই দিন দলের সঙ্গে আইসিসি একাডেমিতে অনুশীলন করেছেন। আঙ্গুলের অবস্থা বুঝতে ব্যাটিংটাই বেশি করেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। গতকাল স্থানীয় সকাল ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত আইসিসি ক্রিকেট একাডেমিতে অনুশীলন করেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

এশিয়া কাপে বাংলাদেশের দলগত লক্ষ্য জানাতে গিয়ে এসিসির ওয়েবসাইটকে সাকিব বলেছেন, ‘আমরা একটা একটা ম্যাচ ধরে এগিয়ে যেতে চাই। অবশ্য চূড়ান্ত লক্ষ্য হচ্ছে ট্রফিটা জেতা। এই কারণেই সবাই এখন এখানে। এই সাফল্য পেতে আমাদেরকে প্রসেসটা ঠিক রাখতে হবে। তাতে আমরা ট্রফির চেয়ে নিজেদের প্রসেসটার দিকেই বেশি মনোযোগী হবো।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়টা আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে বাংলাদেশকে। সাকিব বলেছেন, ‘দুবাই আমরা যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে আমরা খুব ভালো একটা সিরিজ খেলেছি। বিশেষ করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে। তাই সেই আত্মবিশ্বাসটা আমরা এশিয়া কাপে আনতে চাই।’

গ্রুপের দুই প্রতিপক্ষকে হারাতে সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে জানিয়ে বাংলাদেশের সহঅধিনায়ক বলেন, ‘দুই দলই (আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কা) ভালো ক্রিকেট খেলছে, বিশেষ করে ৫০ ওভারের ফরম্যাটে। তাই আমাদেরকে সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে।’

আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচ নিয়ে সাকিব বলেন, ‘শ্রীলঙ্কার দলটা খুব ভালো। এবং তাদের ম্যাচ জেতানো খেলোয়াড় আছে। তাই আমরা একজন বা দুই জনের উপর ফোকাস করতে পারবো না। ১১ জন খেলোয়াড় খেলবে তাই তাদের সবার বিরুদ্ধেই আমাদের ভালো করতে হবে।’

শ্রীলঙ্কা দলও পৌঁছে গেছে দুবাইয়ে। বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানকে হারাতে চায় লঙ্কানরা। অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস বলেছেন, ‘এই টুর্নামেন্টটা সবই দলই গুরুত্বসহকারে খেলে। আমরা টুর্নামেন্টের দিকে তাকিয়ে আছি। এবং বাংলাদেশ, আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে খেলার জন্য। দুটি বড় দল এবং তারা খুব ভালো ক্রিকেট খেলছে। আমরা খুব ভালো ক্রিকেট খেলতে এবং তাদের হারাতে চাই।’

এদিকে দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামের কিউরেটর টোবি লুমসডেন বলেছেন, ম্যাচের প্রথম ইনিংসে গড়ে ২৭০ রান হতে পারে। তিনি বলেন, ‘সাধারণত প্রথম ইনিংসে ২৬০ রান হয়, আশা করি আমরা এটা ধরে রাখতে পারবো এবং কিছুটা বাড়িয়ে ২৭০ রান করতে চেষ্টা করবো। কিন্তু সেপ্টেম্বরে এটা করা কঠিন।’

তবে আমিরাতের আবহাওয়া এশিয়া কাপে বড় ভূমিকা পালন করতে পারে বলে জানিয়েছেন টোবি লুমসডেন। তিনি বলেছেন, ‘আমার মনে হয় এই সময়ে এশিয়া কাপ চলাকালীন বেশিরভাগ সময়ে কন্ডিশন নির্ধারণ হবে আবহাওয়ার মাধ্যমে। দিনে গরম, রাতে আর্দ্রতা বাড়বে সঙ্গে প্রচুর ডিউ থাকতে পারে। কন্ডিশন দিনভর পরিবর্তন হতে থাকবে। বিকেলে কিছুটা পেস সহায়ক কন্ডিশন হবে, রাতে কিছুটা সিম কাজ করতে পারে এবং হয়তো কিছুটা গ্রিপও থাকবে সন্ধ্যায়।’

  

Post Your Comment