আজ শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ |
Search

প্রচ্ছদ বিনোদন অপুকে ডিভোর্সের 'সিদ্ধান্ত' নিয়েছেন শাকিব

৩১৫  বার পড়া হয়েছে

অপুকে ডিভোর্সের 'সিদ্ধান্ত' নিয়েছেন শাকিব

অনলাইন ডেস্ক | ৮:৩৮ অপরাহ্ন, ১০ নভেম্বর, ২০১৭

  

chahida-news-1510324696.jpg

শেষ পর্যন্ত বেশ কিছুদিন বিভিন্ন গণমাধ্যমে আসা খবরটিই সত্য হচ্ছে। আর টিকছে না শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের সংসার। কলকাতার একটি ছবির শুটিংয়ে থাইল্যান্ডে রয়েছেন শাকিব খান। সেখান থেকে ফিরেই তিনি ডিভোর্সের বিষয়ে কাগজপত্র চূড়ান্ত করবেন বলে জানিয়েছে শাকিব খানের বিশ্বস্ত এক সূত্র।

সূত্রটি জানিয়েছে, বিয়ের খবর প্রকাশের পর থেকেই অপুর স্বেচ্ছাচারি বিভিন্ন সিদ্ধান্ত বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে ফেলছে শাকিবকে। অপুর এমন স্বেচ্ছাচারি মনোভাবের কারণেই নাকি তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটছে।

এছাড়াও বেশ কিছু কারণেই অপুর উপর নাখোশ শাকিব। সুপারস্টারের স্ত্রী হওয়া সত্ত্বেও শাকিবের অনুমতি ব্যতিরেকেই অপু সব ধরণের কাজ করছেন। যা ক্রমাগত শাকিব খানের বিরুদ্ধে যাচ্ছে। পাশাপাশি মিডিয়ায় শাকিবকে দমিয়ে রাখার পিছনে যারা কাজ করছেন তাদের সঙ্গে গোপনে বা প্রকাশ্যে উঠাবসা করছেন অপু।

অন্যদিকে বিভিন্ন টক শো কিংবা আড্ডায় শাকিবকে অন্য নায়িকাদের সঙ্গে জড়িয়ে হেয় করে কথা বলার দরুণ বেশ বিরক্ত শাকিব খান। অপুর এমন কার্যকলাপে মানসিকভাবে বেশ অশান্তিতে আছেন শাকিব খান। এইসব কারণেই ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

বিচ্ছেদের ব্যাপারে সাকিবের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘বিষয়টি নিয়ে এখনই কিছু বলতে চাই না। এখনতো আমি কাজ নিয়ে ব্যস্ত। হাতের কাজগুলো একটু হালকা হলে বিষয়গুলো নিয়ে সবাইকে বলব। তবে একটা কথা সবাইকে জানাতে চাই সেটি হচ্ছে কেউ যদি আমাকে হেনস্তা করার চেষ্টা করে সেটা আমি কীভাবে মেনে নেব। সিনেমার নায়ক হলেও তো আমি একজন মানুষ। আমার সম্মান নিয়ে কেউ টানাটানি করলে সেটা আমি কেন মেনে নেব।’

শাকিব খান সরাসরি ডিভোর্সের কথা আপাতত স্বীকার না করলেও ডিভোর্সের ব্যাপারে যখন কথাবার্তা চলছিল তখন নাকি শাকিবকে বিভিন্ন রকম হুমকিও দেয়া হচ্ছিল বলেও জানিয়েছেন তিনি।

২০০৮ সালে শাকিব অপুর বিয়ে হয়। উভয়ের সম্মতিতে বিয়ের খবর দীর্ঘ আট বছর গোপন রাখেন তারা। চলতি বছর ১০ এপ্রিল একটি টিভি চ্যানেলে সন্তানসহ লাইভে এসে বিয়ের কথা ফাঁস করেন অপু। এরপর থেকেই তাদরে মধ্যে সম্পর্কের টানাপোড়েন শুরু হয়।

  

Post Your Comment